The reason I have the right to stay alive


f0c655b71ce0ee5e97d8bf864903e3341. First, I do not claim that I am a concerned man.
II. I am an uncompromising journalist. The latest uncompromising journalism happens, it is “one of the reporters, there is no one to tell her. She was alone in his life. Compromise r those who have a lot of good comfort and happiness. Uncompromising journalists of food, clothes are even deprived of all basic rights. For no reason to not compromise with evil, government, journalists uncompromising opposition to all that is unpleasant. my life has been so. in this age, I was forced to live alone in exile. but we do not compromise.
3. Journalists can uncompromising journalism somewhere for a long time in a row. Because the media has grown in almost all countries of the world, of any person or organization to hide corruption. Press service of the missions of history agree that waking up. The news media has selectively. No person or organization of their choice, or not to endorse the report. If such a policy against the any journalist, was fired for no good reason. So during my happened.
4. I can say that, then all the bad press. And I like myself? No, I do not want to say that. I would like to say, I am not willing to bow down to injustice. I will tell the truth, tell lies and falsehood. Who is bad and who is good at, it’s the responsibility of the public to consider. But yes, I would be uncompromising because I can not work permanently anywhere.
5. Yes, I was born in a Muslim family. However, my family to educate all people. That’s why we are not being educated and fanatical. I think myself an atheist. Therefore, the criticism of religion, the human highlight for the harmful consequences.
6. I speak of human rights. I speak of freedom for all people. I disagree racial discrimination. I think a man would be gay or bisexual, it is its own taste. Here is opposed to any interference in freedom.
7. Persecution of human biological sexual intercourse. However, my position firmly against rape.
8. I am against Islamic militants. Islamic militants has drawn worldwide turmoil. I hope to eliminate their all-out support. How these Islamic militants, where are flourishing. What is the source of their money? What is the procedure for their actions? Who are giving them shelter, in this regard, I am involved in research.
9. Islamic militants as a result of various action plans and work I research, the government has been aware to some extent. This has hampered the work of Islamic militants. As a result, Islamic militants attacked three times to kill me. I went miraculously survived. They could not kill me, my only daughter, and threatened to kill the family. There are secret contacts with Islamist militants in the country’s media. People in high-level media gives them shelter. Not only that, some politicians are concerned with the government of the host and a leading financier of Islamic militants.
10. After attacks by Islamic militants, I seek refuge with the police, but the police did not help me. Fact that the police do not want to, let them take action against Islamic militants. I talk to lots of people learn about the subject that most Muslims support these Islamic militants silent.
11. I further research on Islamic militants and a lot of newspapers and television news sent to the office, the authorities had gone to press. The authorities did not tell me in many ways to research and advise on militants there. I’m the senior authorities, in consultation with the Ministry of the media, including, but not any profit. I am speaking of corruption in the media, they insulted me extreme. At one point, I was fired. No reason to be fired, but the reason I ask the trial court, the trial has not started in the last two years. But in many ways is trying to kill me.
1. Finally, I am forced to leave the city to escape and fled. I can not stay anywhere for more than a month in the village. The Islamic militants got the news of my position. They are looking for me.
13. Due to the study of journalism and Islamic militant, my child, father, mother and family had not time. These have been very busy with full-time. But for me now is being run.
14. I am involved with the movement for women’s rights in Bangladesh. Some women love being pregnant or become victims. Pregnant woman is an insult to Socially family. However, even if the woman wants to give birth to a child, the woman to a hospital or a doctor can not help you. They were forced to live miserable. Born the illegitimate child is called. The identity of the father because the child can not be enrolled in any school. They can not even government facilities. Because, if you can get government benefits or franchise is a specific form to fill out. As well as the identities of the form is to write the name of the father and mother. Their father could not write the name of the father of faceless children, are deprived of all kinds of facilities. The issue I am trying to give legal aid to deprived children and women. Not only that, the child born to his father’s identity, he reasons, civil society groups, wealthy people went to help pay for the DNA tests to try to stand beside the helpless woman.

The religious leaders of the Muslim community on me mad. They conspired to kill me. Islamic militants threatened to kill the one hand, on the other hand has several Islamic religious leaders from the anger of my life.

The religious leaders of the Muslim community on me mad. They conspired to kill me. Islamic militants threatened to kill the one hand, on the other hand has several Islamic religious leaders from the anger of my life.
15. Since I have all my life to serve the people, so I think I have the right to stay alive. I believe that a conscious person, I will not be killed by Islamic militants. Moreover, aware that all people in the world, the journalist, blogger, or if you are aware of someone killed, I do not judge him.
16. Or that part of the world you are, you are certainly aware that, in the service of human life, I’ve spent most of the time. So, to all human beings, that appealed to me, I did not have the right to stay alive? I have the right to live, then why today I am running away from for a long time?
17. I have served human beings. I have served the people helpless. I would protest any wrongdoing. Fight the good fight against the Islamic militants to fight I’ve tried. So, what would be the country’s border barriers for me, why? What I encourage my children to be able to see the consequences? If you question that, my son, “My father has worked all his life for man. He did not want anything for myself. If my father is in the hands of the religious leaders of the Islamic militant Islam was killed?” What will you answer? Can my child to answer the question?
I would encourage you to protest what the circumstances, no one else? No one speaks against Islamic militants?
I still believe that I will shelter somewhere or someone. I could spend the rest of your lives to serve the people of NI. We can protest any wrongdoing.

I believe that, for these reasons, I reserve the right to asylum in any country in the world.

———————–
Let the people to win, win, whether humanity

যেসব কারনে আমার বেচে থাকার অধিকার রয়েছে

 

১। প্রথমেই আমি আমাকে একজন সচেতন মানুষ বলে দাবি করি।

২। আমি একজন আপোষহীন সাংবাদিক। আর আপোষহীন সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে সর্বশেষ যা ঘটে, তা হচ্ছে, “এক সময় সাংবাদিকদের আপন বলতে কেউ থাকেনা। সে তার জীবনে একা হয়ে যায়। যারা আপোষকামী তারা অনেক সুখ স্বাচ্ছন্দে ভালো থাকে। আপোষহীন সাংবাদিকরা খাদ্য, বস্ত্র এমনকি সকল মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত হয়। কারণ, কোন অন্যায়ের সাথে আপোষ না করার কারণে, সরকার, বিরোধীদল সবার কাছেই অপ্রিয় হয় আপোষহীন সাংবাদিকরা। আমার জীবনেও তাই হয়েছে। এই বয়সেই আমি একা নির্বাসন জীবন যাপনে বাধ্য হয়েছি। তারপরেও আপোষ করিনাই।

৩। আপোষহীন সাংবাদিকরা কোথাও এক নাগারে অনেকদিন সাংবাদিকতা করতে পারেনা। কারণ, বিশ্বের প্রায় সব দেশেই সংবাদমাধ্যম গড়ে উঠেছে, কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের দূর্নীতি আড়াল করতে। মানুষের সেবার ব্রত নিয়ে সংবাদমাধ্যম গড়ে উঠবার ইতিহাস নাই বললেই চলে। এসব সংবাদমাধ্যম বেছে বেছে সংবাদ করে। তাদের পছন্দের লোক বা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে কখনই সংবাদ করেনা বা করতে দেয়না। কোন সাংবাদিক এমন নীতির বিরুদ্ধাচারন করলে, কোন কারণ ছাড়াই তাকে চাকরীচ্যুত করা হয়। আমার বেলাতেও তাই ঘটেছে।

৪। অনেকেই বলতে পারেন যে, তাহলে কি পৃথিবীর সকল সংবাদমাধ্যম খারাপ। আর আমি একাই ভালো? না, আমি এমনটা বলতে চাইনা। আমি বলতে চাই, আমি কোন অন্যায়ের কাছে মাথানত করতে রাজী নই। আমি সত্যকে সত্য বলবো, আর মিথ্যাকে মিথ্যা বলবো। এতে কে খারাপ আর কে ভালো, তা বিবেচনা করার দায়িত্ব জনগনের। তবে হ্যা, হতো আমার এমন আপোষহীন এর কারণে আমি কোথাও স্থায়ীভাবে চাকরী করতে পারছি না।

৫। হ্যা, আমি একটি মুসলিম পরিবারে জন্ম নিয়েছি। তবে, আমার পরিবারের সকল লোকজন শিক্ষিত। আর শিক্ষিত হবার কারনেই আমরা কেউ ধর্মান্ধ নই। আমি নিজেকে নাস্তিক মনে করি। তাই ধর্মের সমালোচনা করে, মানুষের জন্য ক্ষতিকর দিকগুলো তুলে ধরি।

৬। আমি মানুষের অধিকারের কথা বলি। আমি সকল মানুষের স্বাধীনতার কথা বলি। আমি বর্ণ বৈষম্য মানিনা। আমি মনে করি একজন মানুষ সমকামী হবে নাকি উভকামী হবে, এটা তার নিজস্ব রুচির বিষয়। এখানে কারো স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করার বিরোধিতা করি।

৭। যৌন মিলন মানুষের জৈবিক তাড়না। তবে, ধর্ষনের বিপক্ষে আমার অবস্থান দৃঢ়।

৮। আমি ইসলামী জঙ্গীদের বিপক্ষে অবস্থান করি। ইসলামী জঙ্গীরা সারা বিশ্বে অশান্তি রচনা করেছে। তাই তাদের নির্মুলে আমি সর্বাত্মক সহায়তা করি। এসব ইসলামী জঙ্গীরা কিভাবে, কোথায় বিস্তার লাভ করছে। তাদের অর্থের উৎস কি? তাদের কর্ম পদ্ধতি কি? কে এবং কারা তাদের আশ্রয় দিচ্ছে, এ বিষয়ে আমি গবেষনায় লিপ্ত।

৯। ইসলামী জঙ্গীদের বিভিন্ন কর্ম পরিকল্পনা এবং কাজ নিয়ে আমি গবেষনা করার ফলে, সরকার কিছুটা হলেও সচেতন হয়েছে। এতে করে ইসলামী জঙ্গীদের কাজে ব্যাঘাত সৃষ্টি হয়েছে। এ কারণে ইসলামী জঙ্গীরা আমাকে হত্যা করার জন্য তিনবার হামলা চালায়। আমি অলৌকিক ভাবে বেচে যাই। তারা আমাকে হত্যা করতে না পেরে, আমার একমাত্র কন্যা সন্তান ও পরিবারকে হত্যার হুমকি দেয়। এসব ইসলামী জঙ্গীদের সাথে বাংলাদেশের সংবাদ মাধ্যমের গোপন যোগাযোগ রয়েছে। সংবাদ মাধ্যমের উচ্চ পর্যায়ের মানুষরা এদের আশ্রয় দেয়। শুধু তাই নয়, সরকারের সাথে সংশ্লিষ্ট কিছু রাজনীতিবীদ এসব ইসলামী জঙ্গীর আশ্রয়দাতা ও অর্থ জোগানদাতা।

১০। ইসলামী জঙ্গীদের দ্বারা হামলার শিকার হবার পরে আমি পুলিশের কাছে আশ্রয় প্রার্থনা করলেও, পুলিশ আমাকে কোন সহায়তা করেনি। কার্যত: পুলিশও চায়না যে, এসব ইসলামী জঙ্গীদের বিপক্ষে তারা ব্যবস্থা গ্রহণ করুক। আমি এ বিষয় নিয়ে অনেকের সাথে কথা বলে জানতে পারি যে, অধিকাংশ মুসলমানই এসব ইসলামী জঙ্গীদের মৌন সমর্থন করে।

১১। আমি ইসলামী জঙ্গীদের বিষয়ে অতিরিক্ত গবেষনা এবং অনেক সংবাদ সংবাদপত্র ও টেলিভিশন অফিসে পাঠালেও, কর্তৃপক্ষ এসব সংবাদ গায়েব করে দেয়। কর্তৃপক্ষ আমাকে নানাভাবে জঙ্গীদের বিষয়ে গবেষনা ও সংবাদ না করার জন্য পরামর্শ দিতে থাকে। বিষয়টি আমি তথ্য মন্ত্রনালয় সহ সংবাদ মাধ্যমের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করলেও কোন লাভ হয়নি। আমি সংবাদমাধ্যমের দূর্নীতির কথা বলতে গেলে তারা আমাকে চরম অপমানিত করে। এক পর্যায়ে আমাকে চাকরীচ্যুত করা হয়। কোন কারণ ছাড়াই চাকরীচ্যুত করার কারণে আমি আদালতে বিচার প্রার্থনা করলেও, গত দুই বছরেও সে বিচার কাজ আরম্ভ হয়নি। বরং নানাভাবে আমাকে হত্যা করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

১২। অবশেষে আমি বাধ্য হয়ে শহর ছেড়ে এখন পালিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছি। আমি কোথাও কোন গ্রামে এক মাসের বেশি অবস্থান করতে পারিনা। কারণ, ইসলামি জঙ্গীরা আমার অবস্থানের খবর পেয়ে যায়। তারা আমাকে খুজে বেড়াচ্ছে।

১৩। সাংবাদিকতার কারণে ও ইসলামী জঙ্গী নিয়ে গবেষনার কারনে, আমি আমার সন্তান, পিতা মাতা ও পরিবারকে সময় দিতে পারিনাই। সার্বক্ষনিক এসব নিয়েই ব্যস্ত থেকেছি। অথচ বিনিময়ে এখন আমাকে পালিয়ে বেড়াতে হচ্ছে।

১৪। বাংলাদেশে নারী অধিকারের আন্দোলনের সাথে আমি জড়িত। প্রেম বা প্রতারনার শিকার হয়ে কোন কোন নারী গর্ভবতী হয়ে পরে। সামাজিকভাবে গর্ভবতী নারিটির পরিবারকে অনেক অপমান করা হয়। এমনকি যদি ওই নারী সন্তান জন্ম দিতে চায় তবে, ওই নারী কোন হাসপাতালে বা কোন ডাক্তারের সহায়তা পায়না। তারা মানবেতর জীবনযাপন করতে বাধ্য হয়। জন্ম নেওয়া শিশুটিকে জারজ বলে অভিহিত করা হয়। পিতার পরিচয় না থাকার কারণে, ওই শিশুটি কোন স্কুলে ভর্তি হতে পারেনা। এমনকি সরকারের কোন সুযোগ সুবিধা তারা পায়না। কারণ, সরকারের কোন সুবিধা বা ভোটাধিকার পেতে হলে একটি নির্দিষ্ট ফরম পূরণ করতে হয়। সে ফরমের মধ্যে বিস্তারিত পরিচয়ের পাশাপাশি বাবা ও মায়ের নাম লিখতে হয়। পিতৃ পরিচয়হীন শিশুরা তাদের বাবার নাম লিখতে না পারার কারণে, সকল প্রকার সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়। আমি এই বিষয়টি নিয়ে বঞ্চিত শিশু ও নারীদের আইনী সহায়তা দেওয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছি। শুধু তাই নয়, জন্ম নেওয়া শিশুটি যেন তার পিতার পরিচয় পেতে পারে, সে কারণে, সমাজের বিভিন্ন বিত্তবান লোকের কাছে গিয়ে ডিএনএ টেস্ট করানোর জন্য অর্থ সাহায্য নিয়ে ওই অসহায় নারীর পাশে দাড়ানোর চেষ্টা করি। 

এতে করে সমাজের মুসলিম ধর্মীয় নেতারা আমার ওপরে ক্ষিপ্ত। তারাও আমাকে হত্যার জন্য ষড়যন্ত্র করেছে। একদিকে ইসলামী জঙ্গীদের হত্যার হুমকি, অপরদিকে বিভিন্ন ইসলাম ধর্মীয় নেতাদের ক্ষোভ আমার জীবনটাকে এলোমেলো করে দিয়েছে।

এতে করে সমাজের মুসলিম ধর্মীয় নেতারা আমার ওপরে ক্ষিপ্ত। তারাও আমাকে হত্যার জন্য ষড়যন্ত্র করেছে। একদিকে ইসলামী জঙ্গীদের হত্যার হুমকি, অপরদিকে বিভিন্ন ইসলাম ধর্মীয় নেতাদের ক্ষোভ আমার জীবনটাকে এলোমেলো করে দিয়েছে।

১৫। যেহেতু আমি সারা জীবন মানুষের সেবা করে এসেছি, তাই আমি মনে করি, আমারও বেচে থাকবার অধিকার রয়েছে। আমি বিশ্বাস করি যে, কোন সচেতন ব্যক্তি আমাকে ইসলামী জঙ্গীদের হাতে খুন হতে দিবেন না। তাছাড়া বিশ্বের সকল মানুষ অবগত যে, বাংলাদেশে সাংবাদিক, ব্লগার বা সচেতন কেউ খুন হলে, তার বিচার হয়না।

১৬। আপনি বা আপনারা পৃথিবীর যে প্রান্তেই থাকুন, আপনি নিশ্চই অবগত হয়েছেন যে, আমি মানুষের সেবায় জীবনের অধিকাংশ সময় ব্যয় করেছি। তাই সমগ্র মানব জাতীর কাছে, আমার আবেদন যে, আমার  বেচে থাকার অধিকার আছে কি না? যদি আমার বেচে থাকার অধিকার থেকে থাকে, তবে আমি কেন আজ দীর্ঘদিন থেকে পালিয়ে বেড়াচ্ছি?

১৭। আমি তো মানব জাতীর সেবা করেছি। আমিতো অসহায় মানুষের সেবা করেছি। আমিতো অন্যায়ের প্রতিবাদ করেছি। আমি তো ইসলামী জঙ্গীদের বিরুদ্ধে প্রাণপন লড়াই করার চেষ্টা করেছি। তাহলে, কোন দেশের সীমান্তরেখা আমার জন্য বাধা হবে কেন? আমার এমন পরিনতি দেখে আমার সন্তান কি উৎসাহ পাবে? আমার সন্তান যদি আপনাদের প্রশ্ন করে যে, “আমার বাবা সারা জীবন শুধু মানুষের জন্য কাজ করেছে। সে নিজের জন্য কিছুই চায়নি। তাহলে আমার বাবাকে কেন ইসলামী জঙ্গী আর ইসলাম ধর্মীয় নেতাদের হাতে খুন হতে দেওয়া হলো”? কি জবাব দিবেন আপনারা? পারবেন, আমার সন্তানের প্রশ্নের জবাব দিতে?

আমার এমন করুন পরিস্থিতিতে আর কেউ কি প্রতিবাদ করার উৎসাহ পাবে? আর কেউ কি ইসলামী জঙ্গীদের বিরুদ্ধে কথা বলবে?

আমি এখনো বিশ্বাস করি যে, আমাকে কোথাও না কোথাও বা কেউ না কেউ আশ্রয় দিবেন। এন বাকী জীবনটা আমি মানুষের সেবা করে কাটাতে পারি। অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে পারি।

 

আমি বিশ্বাস করি যে, এসব কারণেই আমি বিশ্বের যেকোন দেশে আশ্রয় পাওয়ার অধিকার রাখি।

 

———————–

জয় হউক মানুষের, জয় হউক মানবতার

 

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s